বিনোদন

বাবা হবার আগেই মারা গেছেন অভিনেতা চিরঞ্জীবী, স্বামীর মূর্তি পাশে রেখে সাধ খেলেন স্ত্রী

বাবা হবার স্বপ্ন তার আর সম্পূর্ণ হলো না। মাত্র বছর দুই আগে মেঘনা রাজের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে বাঁধা পড়েছিলেন জনপ্রিয় কন্নড় অভিনেতা চিরঞ্জীবী সারজা। কিন্তু তাদের সুখের জীবনে পড়ে গেল বাধা। গত ৭ জুন হঠাৎ করেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৩৯ বছর বয়সে মারা গেলেন চিরঞ্জীবী সারজা। স্বাভাবিকভাবেই তারপর মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছিলেন তার সম্পূর্ণ পরিবার। ছেলের মৃত্যুর পর পরিবারের সকলে জানতে পারেন তাদের বৌমা মেঘনা রাজ অন্তঃসত্ত্বা। প্রায় চার মাস পেরিয়ে গেছে ততক্ষনে।চার মাস পেরিয়ে যাবার ফলে পেটের সন্তান কে নষ্ট করার কোন প্রশ্নই ওঠেনি। তাছাড়াও মেঘনা চেয়ে ছিলেন তার স্বামীর শেষ স্মৃতিকে ধরে রাখতে। এরপর দীর্ঘ নয় মাস কাটিয়ে তাদের বাড়িতে পালিত হলো মেঘনা রাজের সাধের অনুষ্ঠান।

স্বামীর স্মৃতিকে মনে করে চোখে জল চলে আসে অভিনেত্রীর। মেঘনার পাশাপাশি চোখে জল চলে আসছে তা শ্বশুরবাড়ি এবং বাপের বাড়ির সকল সদস্যের। তবু হাসি মুখে অভিনেত্রীর পাশে দাঁড়িয়েছেন তার শ্বশুরবাড়ির এবং বাপের বাড়ির সদস্যরা। তবে সাধের অনুষ্ঠানে এমন একটি দৃশ্য সকলের চোখে পড়ে, যা দেখে চোখের জল আটকাতে পারেননি কেউই।

কি সেই দৃশ্য? প্রতিটা মেয়ের স্বপ্ন থাকে তার সাধের অনুষ্ঠানে তার পাশে থাকবে তার স্বামী। এক্ষেত্রে সে রকম কোনো উপায় নেই। তাই নিজের অপূর্ণ ইচ্ছাকে পূর্ণ করার জন্য স্বামী চিরঞ্জীবীর মূর্তি পাশে রেখে চোখের জল নিয়ে এই সাধের খাবার খেতে হল অভিনেত্রী মেঘনা রাজ কে। তিনি তার স্বামীকে স্মরণ করে বলেন যে,”সারা জীবন আমার স্বামীর স্মৃতি এই ভাবেই আমার পাশে থাকবে, আমি আমাদের সন্তানকে গড়ে তুলবো নিজের মতো করে”।

প্রথম সন্তান ভূমিষ্ঠ হবার আগেই সন্তান কে ছেড়ে চলে গেলেন চিরঞ্জীবী। এটা যে কত বড় দুঃখের ঘটনা তা হয়তো ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না। সময়ের সাথে সাথে চিরঞ্জীবীর পুরনো স্মৃতি কে আগলে রেখে পরিবার এবং বন্ধুদের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠিত হলো মেঘনার সাধের অনুষ্ঠান। সাধের অনুষ্ঠান কখনো শাড়ি পড়ে অথবা কখনো গাউন পরে স্বামীর মূর্তির পাশে পোজ দিয়ে ছবি তুলতে দেখা গেল অভিনেত্রীকে। হাসিমুখেই তিনি ছবি তুলেছেন কিন্তু সেই ছবি দেখে চোখের জল আটকাতে পারেননি পরিবারের লোকজন।

Related Articles

Back to top button