মাস্ক পরতে রাজি না হওয়ায় ছেলেকে খুন করে থানায় হাজির বাবা

dead-body

করনা সংক্রমনের জেরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করেছে প্রশাসন কিন্তু এই পরিস্থিতিতেও অনেকেই মাস্ক না পড়েই বাইরে ঘোরাফেরা করছেন। মাস্ক না পড়ায় ভয়ঙ্কর পরিণতির শিকার হতে হল শোভাবাজার লেনের বাসিন্দা শীর্ষেন্দু মল্লিক। শুধু মাস্ক ব্যবহারে রাজি না হওয়ার কারণে তার বাবার হাতে খুন হতে হল তাকে।

ইতিমধ্যেই তার বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে শোভাবাজার লেন এর বাসিন্দা শীর্ষেন্দু মল্লিকের বয়স 45 বছর তিনি বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্নও বটে। এছাড়া তার মৃগীরোগ রয়েছে। আরো জানা যায় তার বাবা বংশীধর এর সঙ্গে প্রায় প্রতিদিনই ঘুরতে বের হতেন বিকেলে।

নিরাপত্তার কারণে প্রতিদিন মাস্ক পড়তে বলতো বংশীধর। কিন্তু ছেলে মাস্ক পড়তে রাজি নয় ফলে অশান্তি লেগেই ছিল প্রতিনিয়ত। এরকমই শনিবার বিকেলে বের হওয়ার সময় ফের তার ছেলের সঙ্গে বচসা বাধে। রাগের বশে এসে বংশীধর ছেলের গলায় কাপড় জড়িয়ে তাকে খুন করে। পরে নিজেই শ্যামুকুর থানায় হাজির হন।

জানা গিয়েছে, শুধু ছেলের প্রতি নয় তার স্ত্রীর সঙ্গেও মাঝে মাঝেই তার অশান্তি লাগতো। তার স্ত্রী 18 বছর ধরে শয্যাশায়ী। বংশীধর তার স্ত্রী ও ছেলের প্রতি কার্যত বিরক্ত হয়ে পড়েছিলেন। ফলেই ছোট্ট একটি বিষয় নিয়েই এত বড় ঘটনা করে ফেলেছিলেন। তবে শুধু মাস্ক পড়া নিয়েই বছর 45 এর সিদ্ধার্থ কে খুন হতে হল বৃদ্ধ বাবার হাতে? নাকি অন্য কোন রহস্য রয়েছে তা জানতে শুরু হয়েছে তদন্ত।