মোদি সরকার পরিযায়ী শ্রমিকদের কাজে ফেরাতে বরাদ্দ করলেন ৫০ হাজার কোটি টাকা

মোদী সরকার প্রবাসী শ্রমিকদের কাজে ফিরিয়ে আনতে আগ্রহী। ৬ রাজ্যের ১১৬ জেলার পরিযায়ী কর্মীদের জন্য 50,000 কোটি টাকার একটি পরিকল্পনা ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার।

২৪ শে মার্চ, নরেন্দ্র মোদী হঠাৎ করে দেশব্যাপী লকডাউন ঘোষণা করলেন। হাতে সময় ছিল মাত্র 4 ঘন্টা। স্বাভাবিকভাবেই, ভারতের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকরা দেশে ফিরতে পারেননি। অন্য প্রদেশে কাজ হারিয়ে নিজের দেশেই তারা হঠাৎ করেই হয়ে যান পরবাসী।

সময় বাড়ার সাথে সাথে শ্রমিকদের দুর্দশা আরও বেড়ে গেল। অনেক পরিযায়ী কর্মীরা অবশেষে পায়ে হেঁটে বাড়িতে ফিরে আসেন। অনাহার ও অত্যাধিক পরিশ্রমে কারণে অনেকে পথে মারা যান। যদিও শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালু করলেও তাতেও সুব্যবস্থা ছিলনা। ফলস্বরূপ, সরকার বারবার শ্রমিকদের ইস্যুতে মুখ পুড়েছে সরকারের। তাই এবার পরিযায়ী শ্রমিকদের কর্মসংস্থান দেওয়ার জন্য সরকার উদ্যোগ নিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘গরীব কল্যাণ রোজগার যোজনা’ এর অংশ, এই পরিকল্পনাটি ২০ জুন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চালু করা হয়েছে। জানা গেছে যে সরকার পরিচালিত জরিপের ভিত্তিতে ১১৬ টি জেলা নির্বাচন করা হয়েছে। এই প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বলেছিলেন যে ১২৫ দিনের অভিযানটি একটি ‘কার্যকর ও কেন্দ্রীভূত বাস্তবায়ন’, যা ২৫ ধরণের পরিযায়ী কর্মীদের জন্য গ্রামে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে।

কেন্দ্রীয় সরকার এই জেলাগুলি একসাথে নির্দিষ্ট করে দিয়েছে বলে জানা গেছে। আগামী চার মাসের মধ্যে শ্রমিকদের দুর্ভোগ কাটাতে এখানে একটি বিশাল অবকাঠামো তৈরি করা হবে। এই মানচিত্র অনুসারে, বিহারে বেশিরভাগ জেলা চিহ্নিত করা হয়েছে। তারপরে রয়েছে উত্তরপ্রদেশ।