দেশজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১৫১, এগিয়ে মহারাষ্ট্র

লাফিয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। মঙ্গলবার ১৩৯ থেকে বুধবার সন্ধ্যে পর্যন্ত সংখ্যা বেড়ে হল ১৫১। মৃত ৩। যে রাজ্যগুলিতে করোনা ছড়িয়েছে তার মধ্যে আক্রান্তের বিচারে এগিয়ে মহারাষ্ট্র। সে রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৯-এ।

সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে জানা যাচ্ছে, বুধবার সন্ধ্যে পর্যন্ত দেশের মোট ১৭ টি রাজ্যে ছড়িয়েছে এই মারণ ভাইরাস। মহারাষ্ট্রে আক্রান্ত রয়েছে মোট ৪২ জন। এদের মধ্যে ৩ জন বিদেশি নাগরিক ও বাকি ৩৯ জন ভারতীয়। এরপরের স্থানে রয়েছে কেরল সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ২৫। এছাড়া আরও ২ জন বিদেশি নাগরিক কেরলে অসুস্থ। পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্তের সংখ্যা বর্তমানে ১ জন।

[আরও পড়ুনঃমহিলার উপর প্রথম টিকা, আশার আলো জাগছে বিশ্বে]

সারা দেশজুড়ে আক্রান্ত নাগরিক ১২৬ জন। আক্রান্ত বিদেশি নাগরিকের সংখ্যা ২৫ জন। সব মিলিয়ে ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৫১ জন। এদের মধ্যে ১৪ জন আক্রান্তকে সুস্থ করা গেছে বলে জানা গিয়েছে। সব মিলিয়ে ভারতে মৃতের সংখ্যা ৩।

করোনা নিয়ে সতর্ক থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। বুধবার নবান্নে সংবাদিক সম্মেলন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তিনি জানান, যে সব কর্মী বাড়িতে অসুস্থ, তারা অনলাইনে ছুটির আবেদন করুন,দেখে নেবো। আগামী দু’ সপ্তাহ আমাদের একটু সাবধানে থাকতে হবে। বিদেশ থেকে এলেই স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে থাকা উচিত। প্রভাবশালী বলে কোনও টেস্ট করালাম না, এসব চলবে না। সবার জন্য একই নিয়ম।

এর আগে করোনা মোকাবিলায় ২০০ কোটি টাকার তহবিল গড়ার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেদিন নবান্নে জরুরী বৈঠক শেষে তিনি জানিয়েছেন,করোনা মোকাবিলায় যারা কাজ করবেন, সেই সব কর্মীদের জন্য ৫ লক্ষ টাকার অতিরিক্ত বিমা দেওয়া হবে। এই বিমার আওতায় ১০ লক্ষ লোক রয়েছে।

বিভিন্ন রাজ্য থেকে একাধিক ঘটনা সামনে এলে এবং ওডিশা সরকারের তরফে ভ্রমণ নির্দেশিকা লাগু করা হয় যেখানে মার্চ মাসের ১৮ থেকে ইউরোপ এবং ইউনাইটেড কিংডম থেকে আসা নিষিদ্ধ করেছে। এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে বন্ধ রয়েছে স্কুল-কলেজ। বহু কর্মীরাই কাজ করছেন বাড়িতে বসে।