পথ দুর্ঘটনায় মারা গেছে ছেলে, টানা ৩২ বছর বিনা পারিশ্রমিকে ট্রাফিক সামলাচ্ছেন বাবা

এখনও এমন কিছু মানুষ রয়েছে যারা টাকা পয়সার জন্য নয়, সাধারণ মানুষের সুবিধার জন্য মানবিক কাজকর্ম করে থাকেন। সেরকমই একজন ৭২ বছরের বৃদ্ধকে দিল্লির সিলম্পুরে ট্রাফিক সিগন্যাল এর নিচে দেখা যায়। সকাল ৯ টাকা থেকে রাত ১০ টা অবধি তিনি ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করেন। বিগত ৩২ বছর ধরে এই কাজটি করে আসছেন এই ব্যাক্তি।

প্রখর রোদ, বর্ষা কোনোকিছুই তাকে তার কর্তব্য থেকে নড়াতে পারেনি। তবে তিনি এই কাজটি করার জন্য কোনো পারিশ্রমিক পান না। বিনা পারিশ্রমিকে ৩২ বছর ধরে ট্রাফিক সামলাচ্ছেন গঙ্গারাম বাবু। কিন্তু এর পেছনে রয়েছে একটি মর্মান্তিক ঘটনা। যেখানে তিনি ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করেন ওইখানেই তার ছেলে রোড অ্যাক্সিডেন্টে মারা যান। ছেলের শোকে গঙ্গারাম বাবুর স্ত্রীও মারা যান। তারপর থেকে তিনি গত বত্রিশ বছর ধরে বিনা পারিশ্রমিকে কাজ করে চলেছেন।

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতেও তিনি তার কাজ বন্ধ রাখেননি। গঙ্গারাম বাবু একজন ইলেকট্রনিকের মিস্ত্রি ছিলেন। কিন্তু ছেলের অ্যাক্সিডেন্টের পর তিনি আগের পেশা পরিত্যাগ করে হুবহু পুলিশের মতো ইউনিফর্ম বানিয়ে ট্রাফিক সিগন্যাল নিয়ন্ত্রণ করার কাজে নেমে পড়েন। বহু সংস্থা এর আগে গঙ্গারাম বাবুকে সম্মর্ধনা জানিয়েছেন। তবে এই প্রথম তিনি খবরের শিরোনামে উঠে এলেন। তিনি যেভাবে সাধারণ মানুষের কথা ভেবে দিনরাত খেটে চলেছেন এককথায় এটিকে মানবিকতার নজির বলা চলে।