দিল্লির পর রাজ্যেও গোমূত্র খাইয়ে সচেতনতা বার্তা এই বিজেপির নেতার

গোমূত্র খাইয়ে সচেতনতা বার্তা এই বিজেপির নেতার

দিল্লির পর রাজ্যেও গোমূত্র খাইয়ে সচেতনতা বার্তা এই বিজেপির নেতার। চারিদিকে এখন করোনার আতঙ্ক, দিন দিন এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। চিকিৎসকেরাও এর কোন প্রতিষেধক বার করতে পারছে না। তাই মানুষের মধ্যে এই ভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক আরও বেশি ছড়িয়েছে। কিন্তু সেই আতঙ্কের মধ্যেও করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক হিসাবে গ্রামে গ্রামে গিয়ে মানুষকে গোমূত্র খাওয়াছেন বিজেপির রাজ্য কমেটির সদস্য নারায়ন চট্টোপাধ্যায়।

কিছুদিন আগেই বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর দাবি করেছিলেন গরুর গায়ে হাত বোলালেই কমে উচ্চ রক্তচাপ। বিভিন্ন রোগ কমাতে গোমূত্র নাকি অব্যর্থ ওষুধ এমন কথা শোনাগেছে বিভিন্ন বিজেপি ও আরএসএস-এর নেতাদের মুখ থেকে। গত শনিবার করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় দিল্লিতে ভারতীয় হিন্দু মহাসভার নেতা চক্রপাণি মহারাজের উপস্থিতে ধুমধাম করে পালিত হল গোমূত্র পার্টি। সেখানে উপস্থিত ছিলেন প্রায় ২০০ জন মানুষ। গোমূত্র খেলে নাকি করোনা ভাইরাস কিছুই করেত পারবে না এমনি দাবি ছিল তাদের। এবার পিছিয়ে নেই বঙ্গবিজেপিও।

[আরও পড়ুনঃউচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার দ্বিতীয় দিনে কোচবিহারে দুর্ঘটনার কবলে পরীক্ষার্থী]

উত্তর কলকাতার বিজেপির রাজ্য কমেটির সদস্য নারায়ন চট্টোপাধ্যায়কে দেখা গেল এক হাতে পিতলের ঘটি ও অন্য হাতে গোমূত্র নিয়ে গ্রামে গ্রামে ঘুরে মানুষকে খাওয়াতে। এমনকি নিজে খেলেন ও অন্য বিজেপি সদসযাকেও খাওয়ালেন। শুধু তাই নয় এই গোমূত্র খাওয়ানোর আগে তিনি খাটালে গিয়ে প্রথমে জাঁকজমক করে গরুর পুজো করেন। তার পর বেরিয়ে পড়েন গোমূত্র নিয়ে সাধারণ মানুষকে খাওয়াতে। যদিও রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক জানান দলের সাথে এর কোন যোগ নেই, উনি যা করছেন তা ওনার ব্যক্তিগত ব্যাপার।