বাঘকে দিয়ে প্রকাশ করানো হচ্ছে সন্তানের লিঙ্গ, কণ্ড দেখে ক্ষুব্ধ নেটবাসীরা

75

ভ্রূণের লিঙ্গ নির্ধারণ করার জন্য একাধিক পদ্ধতি রয়েছে। তবে মানুষের বিশ্বাস এখনও কিছু লোকমুখে প্রচলিত কু সংস্কারকে ঘিরে। এবার দুবাই তে দেখা গেল এমনই এক চিত্র। সেখানে এক দম্পতি তাদের অনাগত সন্তানের লিঙ্গ নির্ধারণের জন্য একটি বাঘের সাহায্য নিয়েছেন। বাঘ একটি বেলুন ফাটাতেই তার ভিতর থেকে বেরিয়ে এসেছে গোলাপী আবির।

নিরীহ জিবজন্তুদের শো পিস হিসেবে ব্যবহার করার প্রথা বন্ধ হয়ে গেছে সরকারের তরফে। তবু মানুষের অসচেতনতার ছবি ধরা পড়েছে বারবার। দুবাই এর একটি হোটেল বুর্জ আল আরবের সামনে সমুদ্রতটে বসেছিলেন এক দম্পতি। এরপরেই আগমন ঘটে এক শান্ত নিরীহ বাঘের। শূন্যে ওড়ানো তিনটি বেলুনের মধ্যে একটি ফাটিয়ে দেয় সে। এরপরেই গোলাপী আবিরের ছড়াছড়ি। কন্যা সন্তান আসতে চলেছে দম্পতির জীবনে। এই গোলাপী রং সেই বার্তা নিয়ে এসেছে।

আরও পড়ুন:   নেট প্র্যাকটিসে মত্ত বুমরাহ, করলেন ৬ বলে ৬ রকম বোলিং অ্যাকশন, দেখুন ভাইরাল ভিডিও

দুবাইতে বাঘের মাধ্যমে হবু সন্তানের লিঙ্গ নির্ণয়ের প্রচলন নতুন নয়। এই হিংস্র পশুকে দিয়ে লিঙ্গ নির্ধারণের বিষয়টি একটি থিম মাত্র। এবারেও নেহাত কৌতূহলের বশে হবু বাবা মা এই কাজ করেছেন। ভিডিওটি শেয়ার করা হয়েছে লাভইন দুবাই নামের এক ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট থেকে। ভিডিও পোস্ট করার কিছুক্ষণের মধ্যেই কয়েক লক্ষ মানুষ দেখেছেন।

তবে এই ভিডিও দেখে মোটেই আনন্দিত হননি নেটিজেনরা। তারা অভিযোগ করেছেন, সরকারের বিধি নিষেধ না মেনে কিভাবে প্রকাশ্যে এমন ভিডিও করেন! পোস্টটিতে এক হাজারের বেশি মানুষ কমেন্ট সেকশনে তাদের অসন্তোষ ব্যক্ত করেছেন। ক্রমাগত বারণ সত্বেও বন্য বিভাগের কথা অগ্রাহ্য করে এমন কু সংস্কারের বশবর্তী হয়ে প্রাণীদের কাজে লাগানোকে মোটেই ভালো চোখে দেখছে না বন্য প্রাণী সংরক্ষণ বিভাগ। ওই দম্পতির যথাযোগ্য শাস্তির দাবি করেছেন তারা।