হুবহু বাবার মত দেখতে, প্রসেনজিৎ পুত্র তৃষাণজিৎ যেন আগামীর হিরো, ছেলেকে নিয়ে আবেগঘন পোস্ট অভিনেতার

47

বাংলা চলচ্চিত্র জগতে তার অবদান অনস্বীকার্য। বাংলা ছবিতে তার অভিনয় ছবির গুণগত মানকে অনেক গুণ বাড়িয়ে তোলে। অভিনয় জগতের বহু তরুণ তরুণীদের কাছে তিনি তাদের আইকন। হ্যাঁ তিনি হলেন সকলের প্রিয় বুম্বাদা অর্থাৎ টলিউডের সুপারস্টার প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। তার বাবা বিশ্বজিৎ চ্যাটার্জি পরিচালিত ছবি ‘ছোট্ট জিজ্ঞাসা’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে অভিনয় জগতের যাত্রা শুরু করেছিলেন তিনি। সেই থেকে আজ পর্যন্ত তিনি বাঙালি দর্শকদের উদ্দেশে রূপোলি পর্দায় একের পর হিট ছবি উপহার দিয়ে চলেছেন অভিনেতা। তার অসাধারন অভিনয় দক্ষতার মাধ্যমে তিনি দর্শকমহলে বিশেষ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। ‘দুটি পাতা’ ছবিতে প্রথমবার নায়কের চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি দর্শকদের মন জয় করেছিলেন। আর এরপর ১৯৮৭ সালে “অমর সঙ্গী” ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর তা সুপার ডুপার হিট হয়েছিলো। আর সেই থেকে এই ছবির জনপ্রিয়তা আজ ও একইরকম রয়ে গিয়েছে।

তবে শুধু টলিউড নয় এর পাশাপাশি তিনি ১৯৮৯ সালে ডেভিড ধাওয়ানের পরিচালনায় “আঁধিয়া” ছবি, এবং অন্যদিকে ১৯৯১ সালে মেহুল কুমারের পরিচালনায় বলিউডে” মিত মেরে মন কে” নামক দুটি হিন্দি ছবিতে নায়কের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছিলো তাঁকে। কিন্তু এই দুটি ছবি মুক্তি পাওয়ার পর তা বক্স অফিসে সফলতা পায়েনি। তবে বাংলায় ঋতুপর্ণ ঘোষের পরিচালনায় তার অভিনীত সেরা ছবিগুলির মধ্যে অন্যতম হল, “উনিশে এপ্রিল” , “উত্সব”,” চোখের বালি” , “দোসর” , “খেলা” এবং এই ছবিগুলিতে বিভিন্ন চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকমহলে বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেছেন তিনি। কিন্তু শুধু টলিউড, বলিউড নয় এর পাশাপাশি তিনি হলিউডের চলচ্চিত্র জগতে নিজের অভিনয় দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। তার অভিনীত হলিউড ছবিটি হল “দ্য লাস্ট লিয়র”। এই ছবিতে অভিনেতা বলিউডের বিগ বি অর্থাৎ অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করেছিলেন। এটি ছিল তার অভিনীত একমাত্র ইংরেজি ছবি।

আরও পড়ুন:   টাইট পোশাকে উন্মুক্ত যৌবন, আবারও হট লুকে ধরা দিলেন শ্রীদেবী কন্যা জাহ্নবী

কিন্তু অভিনেতার প্রথম বিবাহিত জীবন দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। অভিনয়ের সূত্রে তার পরিচয় হয়েছিলো টলিউডের খ্যাতনামা অভিনেত্রী দেবশ্রী রায়ের সঙ্গে। আর সেখান থেকেই তাদের প্রেমের সূত্রপাত। এরপর এই তারা একসঙ্গে জুটি সেই সময় বহু ছবিতে অভিনয় ও করেছেন। অন্ স্ক্রিন যেমন এই জুটিকে সবাই পছন্দ করত অফ স্ক্রিন এই জুটি টলিউডে সেই সময়ে বেশ চর্চিত ছিল। কিন্তু অন্ স্ক্রিন জুটি সেরা হয়ে উঠলেও ব্যক্তিগত জীবনে তাদের বিয়ে বেশিদিন চলেনি। আর বিবাহ বিচ্ছেদের পর অভিনেতার পুনরায় অপর্ণা গুহঠাকুরতাকে বিয়ে করেন। কিন্তু তার সেই বিয়েও সফলতা পায়নি। আর তারপর তিনি অভিনেত্রী অর্পিতা পালকে বিয়ে করেন এবং আজ অভিনেতা তার স্ত্রী ও ছেলে তৃষাণজিৎকে সুখে সংসার করছেন। নিজের ছেলেকে মিশুক বলে ডাকেন অভিনেতা। তবে বর্তমানে তৃষাণজিৎ ইউরোপে রয়েছে এবং সেখানেই সে পড়াশুনা করছে। করোনা পরিস্থিতির জন্য তিনি এখন নিজের বাবা মা এর সঙ্গেই নিজের কলকাতার বাড়িতে আছেন, আর বহুদিন পরে নিজের ছেলেকে কাছে পেয়ে খুবই খুশি অভিনেতা এবং তার স্ত্রী অর্পিতাও।

আর তাই নিজের ছেলের সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডলে ছবি শেয়ার করে প্রসেনজিৎ লিখেছেন, “সময় বদলেছে, কিন্তু আমাদের রঙের পছন্দ একই রকম রয়েছে।” ছবির নিচে এই ক্যাপশানটি দিয়ে তিনি বোঝাতে চেয়েছেন সময় বদলে গেলেও আমাদের পছন্দ এখনোও একইরকম রয়ে গিয়েছে। অভিনেতার শেয়ার করা এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, নীল টি-শার্ট ও সাদা জিন্স পরে ছোট্ট মিশুকের কাঁধে হাত দিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন অভিনেতা, আর তার সঙ্গেই কোলাজ করা পাশের ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ছোট্ট মিশুক এখন বেশ বড় হয়ে হয়েছে, আর বাবা ও ছেলে দুজনেই কালো টি-শার্ট পরে রয়েছেন। এই ছবিটি শেয়ার করে অভিনেতা তার ছেলের প্রতি আবেগ ও ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ করেছেন। তাদের এই ছবি দেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় তার অনুগামীরা সকলেই অভিনেতার ছেলে তৃষাণজিৎ এর প্রতি ভালোবাসা জানিয়ে তাদের এই সুন্দর ছবিটির প্রশংসা করেছেন সকলেই।