ইচ্ছাকৃতভাবে ভাইরাস ছড়িয়ে থাকলে চীনকে পেতে হবে কঠিন শাস্তি হুঁশিয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্টের

ইচ্ছাকৃতভাবে ভাইরাস ছড়িয়ে থাকলে চীনকে পেতে হবে কঠিন শাস্তি হুঁশিয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্টের। চীনের উহান প্রদেশ থেকে এই মারন ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ে সারাবিশ্বে। এরপরই চীনের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনসহ একাধিক প্রশ্ন তুলে সরব হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এদিন ডোনাল ট্রাম্প সরাসরি হুঁশিয়ারি দিলেন শি জিন পিং কে । চীন ইচ্ছাকৃতভাবে ভাইরাসটি ছড়িয়ে থাকলে পেতে হবে কঠিন শাস্তি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আমরা অনেকদিন ধরেই চেষ্টা করছি চীনে ঢুকে তদন্ত করার জন্য। ওরা অনুমতি দেয়নি। এখন ওরা বলছে ওরা নাকি তদন্ত করছে। আমরা আমাদের মতো তদন্ত করছি। এই ভাইরাসটি ইচ্ছাকৃতভাবে ছড়িয়ে থাকলে শাস্তি পেতে হবে। ইউহানের একটি গবেষণাগারকে ৩০ লক্ষ ৭০ হাজার ডলার আর্থিক অনুদান দিত আমেরিকা। তা বন্ধ করে দিবে বলে ঘোষণা করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

চীনের ভুলে আজ গোটা বিশ্ব মৃত্যু মুখে দাঁড়িয়ে। ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘অনেক অদ্ভুত ঘটনা ঘটেছে। তদন্ত চলছে, আমরা তা উদ্ঘাটন করবই। আমি একটা কথাই বলতে চাই যেখান থেকেই ভাইরাস তৈরি করা হোক বা আসুক না কেন। যেভাবেই এটা চিন থেকে ছড়াক না কেন ১৮৪ দেশ এর জন্য ভুগছে।’ এরপর এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট লাল জিনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন নিজের ইচ্ছায় যদি এটা করে থাকে তাহলে ওদের শাস্তি পেতে হবে। আর যদি ভুল হয় সেটা ভুলেই।